অাপসহীন সত্যান্বেষী
  • শিরোনাম

    কুমিল্লায় প্রবাসীর সুন্দরী স্ত্রী’কে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে যা করলো স্থানীয় মেম্বার ও বখাটেরা

    নিজস্ব প্রতিবেদক | রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭

    কুমিল্লায় প্রবাসীর সুন্দরী স্ত্রী’কে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে যা করলো স্থানীয় মেম্বার ও বখাটেরা

    তাকে ঝাপটে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে এবং শরীরের কাপড়চোপড় খুলে মোবাইলে ভিডিও

    এক গৃহবধূকে মা ও সন্তানদের সামনে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় বর্বর নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কুমিল্লার হোমনার এ ঘটনায় ১৬ডিসেম্বর রাতে ঐ গৃহবধু নিজে বাদী হয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ ৬ বখাটের বিরুদ্ধে হোমনা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার চান্দেরচর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর আড়ালিয়ায় একটি ভাড়া বাসায়।

    অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ছলিমাবাদ ইউনিয়নের ঝুনারচর গ্রামের প্রবাসী মনির হোসেনের স্ত্রী তার ৩ সন্তান ও মাকে নিয়ে গত ১৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে হোমনা উপজেলার চান্দেরচর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর আড়ালিয়া গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়ীতে বেড়াতে আসে।

    ওই দিন রাত দেড়টার দিকে স্থানীয় একদল বখাটে জোর করে ঘরে প্রবেশ করে ওই গৃহবধুকে টানা হেচড়া করে শ্লিলতাহানী ঘটায় এবং তার কানের, গলার স্বর্ণলঙ্কারসহ প্রায় লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এ সময় ওই গৃহবধূ বখাটেদের চিনে ফেলে শোর চিৎকার দিলে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ফয়সাল আহমেদ রিফাত, সাদ্দাম হোসেনসহ ঘটনাস্থলে এসে ঘটনা নিষ্পত্তি করার প্রলোভনে কু-প্রস্তাব দেয়। এতে গৃহবধূ রাজি না হলে বখাটেরা তাকে ঝাপটে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে এবং শরীরের কাপড়চোপড় খুলে মোবাইলে ভিডিও ধারন করে। এসময় ওই গৃহবধূর মা সুফিয়া খাতুন ও ৩ সন্তান তাকে বাঁচাতে চিৎকার শুরু করলে বখাটেরা সবাইকে মেরে আহত করে এবং গৃহবধূকে কিলঘুষি লাত্থি মেরে কাঠের লাঠি দিয়ে মধ্যযুগিয় কায়দায় বর্বর নির্যাতন করে। এরপর গৃহবধূর কানের, গলার ও হাতের স্বর্ণের আংটি ও নগদ ৫১ হাজার টাকাসহ প্রায় লক্ষাধিক টাকা লুট করে নেয় এবং আরো ১ লক্ষ টাকা না দিলে ভিডিও ইন্টারনেটে ও স্বামীর পরিবারের নিকট জানিয়ে দেয়া হবে বলে হুমকি প্রদান করে।

    লোকলজ্জা সম্ভ্রমের ভয়ে কাউকে কিছু না বলে ২দিন ব্যথার যন্ত্রনায় ছটফট করে গত ১৬ ডিসেম্বর বিকালে হোমনা একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে ডাক্তারের কাছে ঘটনার বর্ণনা দিতে গেলে উপস্থিত এক সাংবাদিক ঘটনাটি শুনে তাকে সহযোগিতার আশ্বস দিলে সে ওই সাংবাদিকের সহযোগিতায় হোমনা থানায় ইউপি সদস্যসহ ৬জনের নামে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

    এবিষয়ে চান্দেরচর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল বাসার মোল্লা বলেন, থানা থেকে এমন একটি ঘটনার কথা আমি শুনেছি। অপরাধী যেই হউক পুলিশ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে আমি আশা রাখি।

    স্থানীয়রা জানায়, রিফাত মেম্বার একটা মহলের ইশারায় নিজেকে এই অঞ্চলের কর্তা বাবু মনে করে। তার ভয়ে কেউ টু শব্দটিও করতে সাহস পায়না।
    অভিযুক্ত স্থানীয় ইউপি সদস্য ফয়সাল আহমেদ রিফাত জানায়, আমি ঘটনাটি শুনে সেখানে গিয়েছিলাম এবং মিট-মিমাংসা করে দেবো বলে আশ্বাস দিয়েছিলাম এবং বলেছি বিষয়টি নিয়ে কারো কাছে বলা বলি না করতে। আসলে আমার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ হলে এটা ষড়যন্ত্র।

    হোমনা থানা অফিসার ইনচার্জ রসূল আহমদ নিজামী  বলেন, স্থানীয় সাংবাদিকের মাধ্যমে একজন প্রবাসীর স্ত্রী তাকে নির্যাতনের অভিযোগ দিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    নীল ছবি যেভাবে তৈরি হয়

    ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে onusondhanbd24.com