• শিরোনাম

    মাদারীপুরে অবিলম্বে সাংবাদিক নিপিড়নকারী ৩২ ধারা বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন ও স্বারকলিপি পেশ

    নাজমুল হক মাদারীপুর ॥ | রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

    মাদারীপুরে অবিলম্বে সাংবাদিক নিপিড়নকারী ৩২ ধারা বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন ও স্বারকলিপি পেশ

    প্রস্তাবিত ৩২ ধারা ৫৭ ধারার চেয়েও সাংবাদিকদের জন্য ভয়াবহ ও অনিরাপদ, আইনটি অবিলম্বে বাতিল কর” করতে হবে এই শ্লোগানকে সামনে রেখে। মাদারীপুরে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম(বিএমএসএফ) জেলা শাখার উদ্দ্যেগে। অবিলম্বে সরকারকে এই কালো আইনটি বাতিলের দাবী জানিয়ে এবং বিএমএসএফ’র ১৪ দফা দাবি আদায়ের লক্ষে। রবিবার বেলা ১১টার দিকে মাদারীপুর প্রেসক্লাবের সামনে ঘন্টা ব্যাপি প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন আয়োজন করা হয়। পরে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদানর করা হয়।

    সন্ত্রাসী হামলা, নির্যাতনসহ সারাদেশে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলায় হয়রাণী ও প্রস্তাবিত ৩২ ধারা বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, মাদারীপুর প্রেসক্লাবের আহবায়ক ও সিনিয়র সাংবাদিক শাজাহান খান। বাংলাদেশ মফাস্বল সাংবাদিক ফোরাম মাদারীপুর জেলা কমিটির প্রস্তাবিত সভাপতি ইয়াকুব খান শিশির এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সাব্বির হোসাইন আজিজ এর সঞ্চালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, বিটিভির প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান বাদল, আরটিভি প্রতিনিধি সেলিম ফরাজী, এনটিভির স্টাফ রিপোটার এম আর মর্তুজা, একুশে টিভির প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম পলাশ, কালেরকন্ঠের প্রতিনিধি আয়শা আকাশী, চ্যানেল ২৪ এর প্রতিনিধি সাগর হোসেন তামিম, বাংলা টিভির প্রতিনিধি মেহেদী হাসান সোহাগ, কালবেলা প্রতিনিধি নাজমুল হক প্রমুখ। সমাবেশে একাত্মতা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশ প্রতিদিন এর প্রতিনিধি বেলাল রিজভী, চ্যানেল আই প্রতিনিধি রাহাত হোসেন, বাংলাদেশ টুডের প্রতিনিধি এমদাদ খান, যায়যায়দিন প্রতিনিধি মনজুর হোসেন, আজকের সংবাদ প্রতিনিধি আব্দুল্লা আল মামুন, বাংলা ভিশন টিভির প্রতিনিধি ফরিদ উদ্দিন মুপ্তি, প্রানের বাংলাদেশ প্রতিনিধি মাসুদুর রহমান, আলোকিত আমাদের সময় প্রতিনিধি আরিফুর রহমানসহ বিভিন্ন মিডিয়ার প্রতিনিধিরা অংশ নেয়।

    বক্তারা বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার চেয়েও ভয়াবহ। ১৯টি ধারার মধ্যে মাত্র ৪টি জামিনযোগ্য। বাকিগুলো জামিন অযোগ্য। সাংবাদিকদের জন্য এ ধারাটি অনিরাপদ। আইনটি প্রস্তবনায় সাংবাদিক নেতাদের সাথে কোনরুপ আলোচনা কিংবা মতামতকে অগ্রাহ্য করা হয়েছে। ৫৭ ধারায় মামলা করতে মন্ত্রনালয়ের অনুমতি লাগতো। নতুন এ আইনটি দ্বারা পুলিশ মামলা ছাড়াই যে কাউকে গ্রেফতার করতে পারবে। যা দেশের গণতন্ত্র উন্নয়নের অন্তরায় বলেও দাবী করা হয়। সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবী করা হয় কোন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে হলে সরকারের জাতীয় প্রেস কাউন্সিলে দায়ের করতে হবে। বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে আরোও বলা হয়েছে সরকার চলতি সপ্তাহের মধ্যে ৩২ ধারা বাতিল এবং ৫৭ ধারায় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া সকল মামলা প্রত্যাহার করা না হলে আগামিতে দেশব্যাপী আরো কঠোর কর্মসুচি দেওয়া হবে। সাংবাদিক সমাবেশ শেষে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মোঃ ওয়াহিদুল ইসলামের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

    মাদারীপুর।

    ১১/০২/১৮

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে onusondhanbd24.com