• শিরোনাম

    কুমিল্লায় বিশেষ অভিযানে ৬৩ বিএনপি নেতাকর্মী জেলহাজতে

    | বুধবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

    কুমিল্লায় বিশেষ অভিযানে ৬৩ বিএনপি নেতাকর্মী জেলহাজতে

    কুমিল্লায় বিশেষ অভিযানে বিএনপি নেতাকর্মী জেলহাজতে ৬৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন থানায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে এদের মধ্যে ৪৮ জন বিএনপি এবং ১৫ জন জামায়াত-শিবিরের নেতা কর্মী।

    এর মধ্যে সদর থানায় ২০ জন, সদর দক্ষিন থানায় ৩ জন, চৌদ্দগ্রাম থানায় ৫ জন, চান্দিনা থানায় ৩ জন, বুড়িচং থানায় ২ জন, হোমনা থানায় ৩ জন, তিতাস থানায় ১ জন, মেঘনা থানায় ২ জন, বরুরা থানায় ৩ জন, লাকসাম থানায় ২ জন দাউদকান্দি থানায় ৯ জন মনোহরগন্জ থানায় ২ জনসহ সর্বমোট ৬৩ জন।

    তাই আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুনীর্তি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে কুমিল্লা বিএনপিতে ছড়িয়ে পড়েছে গ্রেপ্তার আতঙ্ক। রায়কে সামনে রেখে কুমিল্লায় এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে অন্তন ১২০ জনকে। এর আগে রবিবার দিবাগত রাত থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন উপজেলায় অভিযান চালিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ২৯ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

    যারা নাশকতাসহ বিভিন্ন মামলার আসামি। কুমিল্লা জেলা ডিআইও ওয়ান মো. মাহাবুব মোর্শেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। গ্রেফতার ব্যক্তিদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

    ২৯ জন গ্রেপ্তার হওয়াদের মধ্যে কুমিল্লা সদর উপজেলায় বিএনপির ২ জন, লাকসাম উপজেলায় বিএনপির ৪ জন এবং জামায়াতের ১ জন, মনোহরগঞ্জে বিএনপির ৩ জন, সদর দক্ষিণে বিএনপির ৩ জন, দাউদকান্দিতে বিএনপির ৩ জন, তিতাসে বিএনপির ১ জন, বুড়িচংয়ে জামায়াতের ১ জন, মুরাদনগরে বিএনপির ৩ জন, দেবিদ্বারে ৪ বিএনপি নেতাকর্মী, হোমনায় ১ বিএনপি নেতা, মেঘনা বিএনপির ১ নেতা এবং নাঙ্গলকোট বিএনপির ২ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

    এছাড়াও গত কয়েকদিনে আরও বেশ কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ। এদের মধ্যে সদর দক্ষিণে ১২ জন, বুড়িচংয়ে ৫ জন এবং চান্দিনায় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

    গোপনে পেট্রল বোমা তৈরির প্রশিক্ষণ নেয়ার অভিযোগে কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর উচ্চ বিদ্যালয় এলাকা থেকে ১২ জনকে গ্রেপ্তারের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মামলায় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহবুব চৌধুরী, মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হারুনুর রশিদ ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ২১নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী মাহবুবুর রহমানসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামাসহ ৬২ জনকে আসামী করা হয়েছে।

    বুড়িচং থানা পুলিশ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযানে উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুল ওয়াহেদ সুয়া মিয়া মেম্বার, ষোলনল ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি মোঃ সালেহ আহাম্মদ, ভারেল্লা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সফিকুর রহমান সুমন, বিএনপি কর্মী কবির হোসেন, ও মোঃ সেলিম মিয়াকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইন, বিস্ফোরক আইন, বিশেষ ক্ষমতা আইনসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।

    শনিবার সন্ধ্যায় চান্দিনা বাজার থেকে হাজী নূরুল ইসলামকে, রাত সাড়ে ৮টায় বেলাশহর বৌবাজার এলাকা থেকে কাউন্সিলর কামলকে এবং রাত ৯টায় পল্লী বিদ্যুৎ এলাকা থেকে শিহাবকে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। শনিবার অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে onusondhanbd24.com